আইফোন ১১ সিরিজে থাকা- না থাকা:


আইফোন ১১ সিরিজে থাকা- না থাকা:

আইফোন ১১ সিরিজে থাকা- না থাকা
iphone 11


অবশেষে জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে আইফোন ১১ সিরিজ বাজারে এনেছে অ্যাপেল। এটি ভারতে পাওয়া যাচ্ছে ২৭শে সেপ্টেম্বর থেকে।এই মুহূর্তে যাদের কাছে আগের মডেল গুলি ছিল তাদের অনেকেই আপগ্রেড হওয়ার ইচ্ছায় নতুন মডেলটি কেনার পরিকল্পনা করেছেন। তাহলে এক নজরে দেখে নেওয়া যাক আগের মডেল গুলোর থেকে কি কি বেশি আছে আইফোন ১১ সিরিজে। আর কি কি খামতি আছে।
এবছর নামকরণের রীতি ভেঙে আইফোন মডেলের নাম থেকে রোমান হরফ সরিয়ে দিয়েছে অ্যাপেল। আইফোন ১০ এর পরবর্তী দুটি ভার্সন ছিল এক্সএস এবং এক্সআর নতুন নামটি দিয়েছে ১১ প্রো এবং ১১ প্রো ম্যাক্স। ১০ এক্সআর এর সঙ্গে ১১ প্রো এর মধ্যে দুটিরই  ডিসপ্লেঃ ৫.৮ ইঞ্চি করে। ম্যাক্স মডেল গুলির আয়তন 6.5 ইঞ্চি করে নতুন সিরিজের ফোনগুলির ডিসপ্লে ওলেড সুপার রেটিনা এক্সডিয়ার অ্যাপেলের দাবি ও লেড হলেও আগের মডেলের থেকে এর উজ্জ্বল বেশি (৮০০ নিটস)। সেই তুলনায় পুরনো এক্সএস ম্যাক্স মডেলে ঔজ্জল্য সর্বোচ্চ ৭২৫ নিটস। অন্যদিকে আইফোন ১১ এবং তার পূর্বসূরী এক্সআরের এলইডি ডিসপ্লে সাইজ একই 6.1 ইঞ্চি।
নয়া আইফোনের ফেস আইডি আরো দ্রুত হয়েছে বলে দাবি করেছে অ্যাপেল এখন বিভিন্ন অ্যাঙ্গেল থেকে মিশ্রণ ভাবে কাজ করবে এই ফিচার প্রসেসর চলবে সংস্থার নিজস্ব A-13 বায়োনিক চিপে। অপারেটিং সিস্টেম‌ ISO-13 । এছাড়াও কম্পানি স্পেশাল অডিও , ডলবি ডলবি এটমস সাপোর্ট রয়েছে ‌ এই আইফোনে।
রঙে তেমন কোন বদল আনেনি অ্যাপেল সংস্থাটি। ১১ প্রো এবং ম্যাক্স পাওয়া যাবে গোল্ড স্পেস গ্ৰে,সিলভার এবং মিডনাইট গ্রীনে এক্সআর ভার্সন এর কোরাল এবং ব্লু রং এর বদলে আইফোন ইলেভেন হাজির এসে সবুজ এবং পার্পেল রঙে।
ব্যাটারি দিক থেকে নতুন মডেল পূর্বসূরীদের টোপকে গিয়েছে।এক্সআরের তুলনায় আইফোন ১১ তুলনায় মাত্র 1 ঘন্টা বেশি ব্যাকআপ দিলেও বাকি দুটি ভার্সনগুলি এর থেকে বেশ কিছুটা এগিয়ে।যেমন এক্সআরের থেকে ১১  ৪ঘন্টা বেশি এবং এক্সএস ম্যাক্স এর থেকে প্রো ম্যাক্স  ৫ঘন্টা বেশি ব্যাকআপ দেবে বলে জানিয়েছে টিম কুক। চার্জার ১৮ ওয়াটের।
ভক্তদের আরো প্রত্যাশা পূরণ করে এ বছর আরও বেশি শক্তিশালী নাইট মুড ও আল্ট্রা ওয়াইড ক্যামেরা নিয়ে হাজির হয়েছে অ্যাপেল আইফোন ১১।ডিসপ্লে নচের মধ্যেই ফ্রন্ট ক্যামেরা বসিয়ে অ্যাপেল। ৭ মেগাপিক্সেলের থেকে বেড়ে হয়েছে ১২। গ্যালাক্সি নোট ১০ প্লাস বা হুয়াই পি ৩০-তে আল্ট্রা ওয়াইড ক্যামেরা থাকলেও অ্যাপেল এগিয়ে থাকবে বলেই জানিয়েছে। প্রো ভার্সন এ রয়েছে তিনটি ক্যামেরা যার মধ্যে একটি হলো আল্ট্রা ওয়াইড ক্যামেরা। অ্যাপেল জানিয়েছে স্মার্টফোনের জগতে এত নিখুঁত আল্ট্রা ওয়াইড ক্যামেরা বা লেন্স আগে কেউ আনেনি । এরই পাশাপাশি উন্নত নাইট মুড নিজে দেখেই ছবির এক্সপোজার হোয়াইট ব্যালেন্স ঠিক করে আপনাকে ঝকঝকে ছবি দেবে সেকেন্ডের কম সময়।সএছাড়াও ডিপ ফিউশন বলে একটি নতুন ক্যামেরা ফিচার যোগ হয়েছে ১১প্রো সিরিজে, যা প্রথম সফটওয়্যার আপডেটের পর হাতে পাবেন গ্রাহকরা।
পুরনো মডেল গুলোর তুলনায় নতুন আইফোন অনেক বেশি টেকসই এবং শক্তপোক্ত প্রতিবছরই ফোনের জল নিরোধক ক্ষমতা এবং স্থায়িত্ব নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালায় আপেল। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি, ওয়েবসাইটে নতুন সিরিজ নিয়ে বলতে গিয়ে ভূমিকাতেই অ্যাপেল জানিয়েছিল।
স্মার্টফোনের ইতিহাসে এখনো পর্যন্ত শক্ত গ্লাস লাগানো হয়েছে আইফোন ১১ সিরিজে। সামনে তো বটেই পেছনেও রয়েছে শক্ত ম্যাট গ্লাস‌। অ্যাপেল সংস্থার দাবি চার মিটার গভীর জলে ৩০ মিনিট ডুবিয়ে রাখলেও কিছু হবেনা আইফোনে। নতুন সিরিজে না পাওয়ার তালিকাতেও রয়েছে বেশ কিছু জিনিস। আইফোন ইউজার রা আশা করেছিলেন রিভার্স এবং ওয়ারলেস চার্জিং দুটোই থাকবে নতুন এই সিরিজে কিন্তু বাস্তবে তা হয়নি যদিও নতুন ফোন গুলো কে কিউ আই প্যাড দিয়ে তারবিহীনভাবে চার্জ দেওয়া যাবে ঠিকই কিন্তু এক ফোন থেকে অন্য ফোন বা ফোন থেকে আপেল স্মার্ট ওয়াচ চার্জ করার ব্যবস্থা এখানে নেই। এছাড়াও অনেকে আবার থ্রিডি টাচ এর আশা করেছিল কিন্তু দাম কম রাখতে গিয়ে ভক্তদের সেই আশাতে জল ঢেলে দিয়েছে অ্যাপেল ।

আশাকরি, আজকের এই পোস্ট আপনাদের ভালো লেগেছে। যদি তাই হয় তাহলে আর্টিকেল টি শেয়ার অবশ্যই করবেন। এবং, নিচে comment করতে ভুলবেননা।😄
SHARE

Milan Tomic

Hi. I’m Designer of Blog Magic. I’m CEO/Founder of ThemeXpose. I’m Creative Art Director, Web Designer, UI/UX Designer, Interaction Designer, Industrial Designer, Web Developer, Business Enthusiast, StartUp Enthusiast, Speaker, Writer and Photographer. Inspired to make things looks better.

  • Image
  • Image
  • Image
  • Image
  • Image
    Blogger Comment
    Facebook Comment

0 comments:

Post a Comment